বিশ্বব্যাপী যাকাত আদায়কারী সংস্থাসমূহ ও তাদের কার্যাবলী।

যাকাতের প্রকৃত উদ্দেশ্য হচ্ছে এর মাধ্যমে পুঁজিবাদতন্ত্রের বিলোপ ঘটিয়ে অর্থের সুসম বন্টন নিশ্চিত করে অর্থনৈতিক ভারসাম্য রক্ষা করা; সমাজ থেকে দারিদ্রতা দূর করা । আর সে জন্য প্রয়োজন একটি সুষ্ঠু কাঠামো । সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যাকাত ব্যাবস্থাপনায় নিয়োজিত রয়েছে।
১.যাকাত ফাউন্ডেশন অব আমেরিকা :
পরিচিতি: পবিত্র কুরআনের সূরা আল-ইনসানের আয়াত নং ৮-৯ এর মর্ম উপলব্ধি করে এর থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে কুরআন-সুন্নাহর আলোকে যাকাত ব্যবস্থাপনার সুষ্ঠ তদারকির জন্য একটি দাতব্য সংস্থা হিসেবে ২০০১ সালে যাত্রা শুরু করে ”ঞযব তধশধঃ ঋড়ঁহফধঃরড়হ ড়ভ অসবৎরপধ” । বেসরকারিভাবে পরিচালিত এই অরাজনৈতিক সংস্থাটি যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় অঙ্গরাজ্যের আইনের অধীনে পরিচালিত হয়।
গভর্নিং বডি:
নির্বাহি পরিচালক: খলীল ডেমির
প্রেসিডেন্ট : ড. হাসান আর্সলান
কোষাধ্যক্ষ : আইদা আব্দাল্লাহ
সদস্য : ১ ড. মেহমেত তারহান
২ সাওসান হাবালী
৩ ফাতিমা খলীল
মিশন:
* দূর্যোগ ও দূর্যোগ পরবর্তী সময়ে প্রয়োজনীয় ত্রাণ ও নির্মাণ সামগ্রী প্রদানের মাধ্যমে সহায়তা প্রদান, অনাথ ও স্বাস্থ্য ক্লিনিক স্থাপন, কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম এবং মাইক্রো ক্রেডিট সহায়তা প্রদান, রমজান মাসে ইফতার ও খাদ্য বিতরণ, কমিউনিটির সহায়তায় কুরবানি ও আকীকার গোশত সরবরাহ করা।

* আমাদের মুসলিম দাতাদের জন্য একটি বিশ্বস্ত যাকত ও সাদকা সম্পদ কেন্দ্র হিসেবে কাজ করা।

* আর্থিক স্বচ্ছতা, দক্ষতা এবং জবাবদিহিতামূলক কঠোর মানদন্ডের মাধ্যমে সকল দাতাদের জন্য বিশ্বস্ত দাতব্য বিকল্প হিসেবে কাজ করা।

* একটি প্রশাসনিক কর্মীদের বজায় রাখার মাধ্যমে খরচ কমিয়ে আনা।

* কৌশলগত অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দানের খাতকে প্রসারিত করা।

কর্মপরিধি:
যাকাত ফাউন্ডেশন অব আমেরিকা দাতব্য সংস্থাটি আমেরিকা ভিত্তিক হলেও এর কর্ম পরিধি গোটা বিশ্বের মুসলিম দেশগুলো। বাংলাদেশও এর আওতাভুক্ত। বাংলাদেশে এর একটি শাখাও আছে।
কার্যাবলী:
বেসরকারিভাবে পরিচালিত দাতব্য সংস্থাটি তাদের যাকাত উৎস থেকে প্রাপ্ত অর্থ দ্বারা পরিচালিত কর্মসূচী হল-
খাদ্য সহায়তা কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর মাধ্যমে গোটা বিশ্বব্যাপী সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে বিশুদ্ধ পানি ও প্রয়োজনীয় খাদ্য সরবরাহ করা হয়। বিশেষ করে রমজান মাসে ও কুরবানীর সময় তা আরো জোরদার করা হয়।
নিরাপদ আশ্রয় কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর আওতায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর ক্ষতিগ্রস্ত অবকাঠামো মেরামত বা পুন:নির্মাণ অথবা তাঁবু আকারে অস্থায়ী সহায়তা প্রদান করা হয়।
অনাথ স্পন্সরশিপ প্রোগ্রাম: এই কর্মসূচীর আওতায় অনাথ শিশুদের খাদ্য, বস্ত্র, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য সহায়তা প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য যে, ঞযব তধশধঃ ঋড়ঁহফধঃরড়হ ড়ভ অসবৎরপধ এর যাকাত কর্মসূচী ছাড়াও বিভিন্ন উৎস থেকে প্রাপ্ত অর্থের মাধ্যমে মানবসেবা করে থাকে। এর মধ্যে রয়েছে-
* সাধারণ দান দ্বরা পরিচালিত কর্মসূচী
* জরুরী ত্রাণ সেবা কর্মসূচী
* মৌসুমি কর্মসূচী
* আকীকা ও কুরবানী কর্মসূচী
* অনাথ স্পন্সরশিপ প্রোগ্রাম
* টঝঅ প্রেগ্রাম

বার্ষিক রিপোর্ট ২০১৭:
আয়:
৩০ জুন ২০১৭ সালে পেশকৃত বার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে ঞযব তধশধঃ ঋড়ঁহফধঃরড়হ ড়ভ অসবৎরপধ এর বিভিন্ন উৎস থেকে প্রাপ্ত মোট অর্থের পরিমাণ ছিল ১২৭৯১১২৭ ডলার যার বাংলাদেশি মূল্য হচ্ছে প্রায় ১০৭ কোটি ৬৪ লক্ষ ৬৭ হাজার ৬ শত ৬২ টাকা ৫৩ পয়সা।
ব্যায় ও ব্যায়ের খাত:
ব্যায়ের খাত অর্থের পরিমাণ (টাকা)
জরুরী ত্রাণ সহায়তা ৫৫৪৯৩১৭৯০.৪৫
মৌসুমি প্রোগ্রাম ১৩৭৩৬২৫৯২.০৫
উন্নয়ন কর্মসূচী ৬৮৬৬৬৬১০.৫৬
অনাথ স্পন্সরশিপ ৩৭২৯২৯০৯.৭৪
শিক্ষা সহায়তা কর্মসূচী ৩১৯৩০৫৭০.১৭
অন্যান্য কর্মসূচী ২৩৫৬৮৪৪০.৯৮
ব্যবস্থাপনা খরচ ৭১৫৩৫৫৩৫.৪৫
তহবিল সংগ্রহ ৪০৬৭৩৮৪৮.১
মোট ব্যয় ৯৬৫৯৬২২৯৭.৫
অবশিষ্ট ফান্ড: ১০৭৬৪৬৭৬৬২.৫৩(আয়) – ৯৬৫৯৬২২৯৭.৫(ব্যয়)
=১১০৫০৫৩৬৫.০৩ টাকা
আর্থিক কার্যকারিতার পরিসংখ্যান:

The Zakat Foundation Of America তার সকল কার্যাবলীতে সফলতার সাক্ষর রাখার মাধ্যমে ঘবি ণড়ৎশ ঞরসবং এর জরিপে শীর্ষ স্থান দখল করেছে এই সংস্থাটি।

২. دائرة الزكاة (যাকাত বিভাগ):
পরিচিতি: এই সংস্থাটি ওমান ধর্ম মন্ত্রণারয়ের অধীনে পরিচালিত একটি বিভাগ। ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এই সরকারী সংস্থাটি যাকাতের সম্পদ সঠিকভাবে ব্যবস্থাপনার জন্য গঠিত হয়েছিল।
মিশন: এই সংস্থাটির মিশন হল যাকাত বিষয়ক সচেতনতা তৈরি, যাকত সংগ্রহ এবং শরীয়াহ অনুযায়ী বন্টন করা।
ভিশন: গোটা ওমানে যাকাতের সর্বোত্তম সেবা পৌঁছে দেয়া।
কর্মক্ষেত্র: এই বিভগের কাজ হচ্ছে ওমান রাষ্ট্রের সকল এলাকা থেকে যাকাত সংগ্রহ এবং সকল অঞ্চল এবং শহরে যাকতের অর্থ শরীয়াহ অনুযায়ী বন্টন করা।
কর্মসূচী: دائرة الزكاة বা তধশধঃ উবঢ়ধৎঃসবহঃ যাকাতের অর্থ দিয়ে সমাজ থেকে দারিদ্র বিমোচনকল্পে এবং যাকাতের অর্থকে সর্বোত্তমভাবে কাজে লাগানোর জন্য যেসব কর্মসূচী গ্রহণ করেছে তা হল-
* জীবিকা কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর মাধ্যমে নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীকে প্রয়োজনীয় রসদ সরবরাহ করা। কোন্ পরিবারে কতজন সদস্য আছে, কী পরিমাণ চাহিদা আছে তা নির্বাচন করাও এই বিভাগের কাজ।
* আবাসন কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর আওতায় সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠিকে আবাসন নির্মাণ কিংবা পুরাতনগুলো মেরামত করে দেয়া এবং নির্মাণ সামগ্রী সরবরাহ করাও এই বিভাগের দায়িত্ব।
* শিক্ষা কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর মাধ্যমে দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে, শিক্ষা বঞ্চিত জনগোষ্ঠিকে শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা হয়। বিশেষ করে যারা সরকারি শিক্ষা পায় না তাদেরকে সহায়তা প্রদান করা। যাতে ভবিষ্যতে তারা তাদের পরিবারের জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।
* চিকিৎসা কর্মসূচী: এই কর্মসূচীর আওতায় ওমান সরকার যাকাত অর্থের মাধ্যমে দরিদ্র জনগোষ্ঠির যারা চিকিৎসা খরচ বহন করতে পারে না তাদেরকে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করে থাকে।
* দূর্যোগ কর্মসূচী: যাকাত ব্যবস্থাপনার ওমান সরকারের আরেকটি কর্মসূচী হল বছরের বিভিন্ন সময় প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় বাস্তুহারা অসহায় জনগোষ্ঠিকে তাৎখনিক সহায়তা প্রদান করা।
* সাধারণ কর্মসূচী: এই কর্ম সূচীর নির্দিষ্ট কোন খাত নাই ; বরং বছরের বিভিন্ন সময় দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে সহায়তা প্রদান করা বিশেষ করে রমজান মাসে তার গতি তরান্বিত হয়।

৩. صندوق الزكاة (যাকাত ফান্ড)
পরিচিতি: صندوق الزكاة এই যাকাত ফান্ডটি সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার কর্তৃক পরিচালিত একটি সংস্থা । নভেম্বর ১৫, ২০০৩ সালে শেক জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান কর্তৃক জারিকৃত ২০০৩ সালের ফেডারেল ল’ নং-৪ এর আলোকে প্রতিষ্ঠিত হয় এই যাকাত ফান্ড। এটি একটি স্বাধীন সার্বজনীন সংস্থা যার একটি বৈধ আইনের ভিত্তি রয়েছে । এটি মন্ত্রীদের কউন্সিলের অধীনে কাজ করে।
ভিশন: এটির ভিশন হচ্ছে যাকাত সেবায় নেতৃত্ব শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করা।
মিশন: যাকত বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে এই সেবায় বিশেষত্ব অর্জন। আরব আমিরাতের সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য যাকাতের তহবিল সংগ্রহ, তার রাজস্ব বৃদ্ধি এবং বৈধ খাতে তার বন্টন নিশ্চিত করা।
গভর্নিং বডি: এই যাকাত ফান্ড কে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য একটি সুদক্ষ কর্মঠ গভর্নিং বডি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। উক্ত গভর্নিং বডির গঠন নিম্নরূপ-
প্রধান: ড. শেখ মুহাম্মদ আব্দুর রহিম সুলতান আল উলামা
উপপ্রধান: শেখ তালিব মুহাম্মদ আল শেহ্হী
সদস্য: ১) ড. শেখ হাসান মুহাম্মদ আল মারজুকী
২) ড. শেখ আহমেদ আব্দুল আজিজ আল হাদ্দাদ
৩) শেখ আলিদ আল ওয়ালেদ মুহাম্মদ
৪) শেখ মুহাম্মদ সুলাইমান আল বাল্লুশী
কার্যাবলী: আরব আমিরাত ভিত্তিক যাকাত ফান্ড صندوق الزكاة) ) যাকত উৎস থেকে প্রাপ্ত অর্থের মাধ্যমে দারিদ্র বিমোচনকল্পে নিম্নোক্ত প্রকল্পসমূহ গ্রহণ করেছে।
* ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্ধার প্রকল্প
* তালাকপ্রাপ্তা রমনীদের জন্য নির্ভরতা প্রকল্প
* বিধবাদের জন্য রাহমা(রহমত) প্রকল্প
* সুবিধা বঞ্চিত বয়স্কদের জন্য সহায়ক প্রকল্প
* হোপ প্রকল্প: জরুরী প্রয়োজনে
* দরিদ্র বেকার জনগোষ্ঠির জন্য বেকারত্ব প্রকল্প
* ঈদ প্রকল্প ।
বার্ষিক রিপোর্ট ২০১৭:
আরব আমিরাতের যাকাত ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত সরকারি এই সংস্থাটি তাদের যাকাত ব্যবস্থাপনার সুষ্ঠ তদারকির জন্য বাৎসরিক রিপোর্ট প্রকাশ করে থাকে। উক্ত যাকাত ফান্ডের প্রকাশিত বাৎসরিক রিপোর্ট-২০১৭ এর তালিকা নিম্নে পেশ করা হল।
নং যাকাত সুবিধা প্রকল্প সুবিধাভোগীর সংখ্যা অর্থেরপরিমাণ(দিরহাম)
১ নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠিকে সহায়তা প্রকল্প ২০৪২ ৩৫৩১৩১৭১
২ শিক্ষা সহায়তা প্রকল্প ৩৪৩৪ ৭৩৭৯৩০২৮
৩ হেপ প্রকল্প (বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন লোকদের জন্য) ১০৬ ৩০২৫১৬৬
৪ বয়স্ক প্রকল্প ৭৬৬ ১৫৪৬৬০০০
৫ তালাকপ্রাপ্তাদের নির্ভরতা প্রকল্প ৮৪৪ ২৫৫৮৭০০০
৬ অনাথ প্রকল্প ১৩০ ৩১৩৪৫০০
৭ বিধবাদের জন্য রাহমা প্রকল্প ২৯৭ ৬৫১৬০০০
৮ স্বাস্থ্য প্রকল্প ৪৫৮ ৯৩৭৩৫১৬
৯ কারাগারে আটককৃতদের পরিবার সহায়তা ১৩৫ ৪১২৩৭৫০
১০ বেকার সহায়তা প্রকল্প ৫০৯ ৮৫১০৫০০
১১ দেউলিয়াদের ঋণ মুক্তি প্রকল্প ৯৪ ৯৩৭৩৫১৬
১২ নও মুসলিম প্রকল্প ১১০৫ ৫৪৯৭০০০
১৩ উদ্বাস্তুদের পুনর্বাসন প্রকল্প ৬০ ১২৪৬০৮
১৪ ঈদ উপহার প্রকল্প ৮১৪ ১০৯৮১০০
১৫ মাওদ্দা প্রকল্প ৯৩১ ৩৬৫০৯০০০
১৬ যাকাত আল ফিতর প্রকল্প ৮৯১ ১২৬৮৮০০
১৭ অংশগ্রহণ প্রকল্প ২৯৮ ৬৫২৬০০০

মোট সুবিধাভোগীর সংখ্যা: ১২৯১৪
মোট প্রদত্ত অর্থের পরিমাণ: ১৯৫২৩৯৬৫৭ দিরহাম ।

৪. যাকাত হাউজ অব কুয়েত:
পরিচিতি: হিজরি ১৪০৩ সালের রবিউল আউয়াল মাস মোতাবেক জানুয়ারী ১৬, ১৯৮২ সালে প্রণিত ষধি ড়ভ ধপঃ ৫,১৯৮২ অনুযায়ী যাকত হাউজকে একটি স্বাধীন বাজেট ও আইনী ব্যাক্তিতে¦র সাথে সরকারি কর্র্তৃপক্ষ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল।
এবং ইসলাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে দেয়া হয়েছিল। সমাজের দারিদ্র বিমোচন -কল্পে ইসলামের অন্যতম ফরজ বিধান যাকাত ব্যবস্থাপনার জন্য প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল এই যাকাত হাউজ অব কুয়েত।
ভিশন: যাকাত ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নেতৃত্ব ও দক্ষতার পরিচয় দেয়া।
মিশন:
* প্রাতিষ্ঠানিক কর্মক্ষমতা দক্ষতা বৃদ্ধি ও সাংগঠনিক কাঠামো উন্নয়ন।
* যাকাত ও রাজস্ব আয় বৃদ্ধি করা
* বিনিয়োগ বিকাশ ও আয় বৃদ্ধি
* একাডেমিক ও মিডিয়া কার্যকলাপ বিকাশ
* যাকতের রাজস্ব ব্যায় এবং সেবায় বৈচিত্র আনয়ন ও উন্নয়ন করা।
গভর্নিং বডি:
চেয়ারম্যান: ড. ফাহাদ মুহাম্মদ মোহসেন আল আফামী
ভাইস চেয়রম্যান: শুরায়দা আব্দুল্লাহ আল-মাউর্শায
সদস্য: ১) খলিফা এসিসটেন্ট হামাদা
২) সা’দ এম আল-খারাজ
৩) ফরিদ আসাদ আমাদী
শরীয়াহ বোর্ড:
চেয়ারম্যান: ড. খালিদ শুযা আল উতাইবী
সদস্য: ১) প্রফেসর মুবারক সাইফ আল হাজরী
২) ড. ওয়ালিদ মুহাম্মদ আহমদ আল কান্ডারী
৩) শেখ আলি সউদ আলাজমী আল-কেলাইব
৪) ড.মুহাম্মদ আওয়াদ আল-ফাজই
কার্যাবলী: যাকাত হাউজ তাদের কর্মপরিধি নিজ দেশ ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ছায়া বিস্তার করেছে। তাদের কর্মসূচী গুলো একটি তালিকা দেয়া হল-
স্থানীয় প্রকল্প সমূহ:
* শিক্ষা প্রকল্প
* চিকিৎসা প্রকল্প
* সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্প
আন্তর্জাতিক প্রকল্প সমূহ:
* অনাথ স্পন্সরশিপ প্রোগ্রাম
* স্টুডেন্ট স্পন্সরশিপ প্রকল্প
* মৌসুমি প্রকল্প
* অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প।

এই সকল সংস্থা ছাড়াও বিশ্বব্যাপী আরোও যাকাত ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত সংস্থা রয়েছে
যেমন:
* الهيئة العامة للزكاة و الدخل (المملكة العربية السعودية)
* الهيئة العامة للزكاة و الدخل (الكويت
* صندوق الزكاة (القطر)
* صندوق الزكاة و الصدقات (المصر)
* صندوق الزكاة الليبي
* Pusat Pungutan Zakat ( Malaysia)
* Center for Zakat management (Bangladesh)
* Zakat Board(Bangldesh)
* Nationla Zakat Foundation ( UK, Australia, NewZeland, Canada)
* ديوان الزكاة (Sudan)
পরিশেষে বলা যায়, দারিদ্রতা দূরীকরণে বিশ্বব্যাপী মুুসলিম রাষ্ট্রগুলোর সরকারকে যাকাত ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব নিতে হবে । সততা ও দায়িত্বশিলতার মাধ্যমে জনগণের বিশ্বস্ততা অর্জন করতে হবে।


১. Zakat Foundation of America, annual report2017
২. New York Times, October29,2018
৩. www.zakatfund.gov.ae
৪. এইচ.ই আব্দুল্লাহ বিন আকীদা আল-মেহরি,যাকাত ফান্ড সেক্রেটারি জেনারেল (অনুমোদিত), শিরোনাম: key zakat disbursement outcomes 2013-2017
৫.www.zakathouse.org.kw

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *