বিবিধযাকাতসমসাময়িক মাসআলা

ধর্মীয় কর্মকান্ডে যাকাতের অর্থ প্রদানের বিধান

Print Friendly, PDF & Email

ইসলামী শরীয়তের যাকাতের নির্ধারিত ব্যয়ের খাত আটটি। এগুলোর মধ্যে অন্যতম ও ব্যাপক অর্থবোধক খাত হলো في سبيل الله। যার অর্থ হচ্ছে আল্লাহর পথে। ‘আল্লাহর পথে কথা’-টি খুব ব্যাপক অর্থবোধক। মুসলমানদের সকল নেক কাজ আল্লাহর পথেরই কাজ। তবে এখানে আল্লাহর পথে কথাটি বিশেষ অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে। সে সব গাযী ও মুজাহিদ যাদের অস্ত্র ও জিহাদের উপকরণ ক্রয় করার ক্ষমতা নেই অথবা ঐ ব্যক্তি যার উপর হজ ফরয হয়ে গেছে কিন্তু এখন আর তার এমন অর্থ নেই যাতে সে ফরয হজ আদায় করতে পারে। ফকীহগণের মতে, দ্বীনি ইলেম শিক্ষার্থী কিংবা অন্যান্য সৎকাজে নিয়োজিত ব্যক্তিকে যাকাত দেয়া যাবে, যদি তারা গরীব হয়। ধর্মীয় কর্মকান্ডেও যাকাত দেয়া যাবে। তবে এ ক্ষেত্রে শর্ত হলো, যাকাতগ্রহিতার উপর যাকাতের প্রদেয় অর্থের মালিকানা সাব্যস্থ হতে হবে।
আল্লামা কাসানী রহ. ‘বাদায়িউস সানায়ি’ কিতাবে লিখেন, في سبيل الله বলতে আল্লাহর নৈকট্য ও ইবাদতমূলক সকল কাজই বুঝায়। আর বাক্যটি আসল তাৎপর্যও তাই। ফলে আল্লাহর কাজে চেষ্টাকারী ও সর্বপ্রকার ধর্মীয় কাজ এবং কল্যাণমূলক কাজে নিয়োজিত লোকগণই এর অন্তর্ভূক্ত হবে, যদি তারা অভাবগ্রস্থ। ফাতাওয়া শামীতে-
وفي سبيل الله وهو منقطع الغزاة وقيل الحاج وقيل طلبة العلم وفسره في البدائع بجميع القرب.
‘ফী সাবিলিল্লাহ’ দ্বারা উদ্দেশ্য হচ্ছে যুদ্ধে যেতে আর্থিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি, কারো মতে, হজ যেতে আর্থিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি, কারো মতে, তালিবে ইলেম। বাদায়ে’ গ্রন্থে এর ব্যাখ্যা করা হয়েছে, সব ধরণের ভালো কাজ।

উপরোক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে যে সমস্ত ধর্মীয় কাজে যাকাতের অর্থ যাবে সেগুলো তুলে ধরা হলো-
১. যে সকল মুজাহিদদের অস্ত্র ও জিহাদের উপকরণ ক্রয় করার ক্ষমতা নেই।
২. ঐ ব্যক্তি যার উপর ফরয হয়ে গেছে; কিন্তু এখন আর তার এমন অর্থ নেই যাতে সে ফরয হজ আদায় করতে পারে।
৩. অভাবী, গরীব দ্বীনি ইলম শিক্ষার্থী।
৪. সৎকাজে নিয়োজিত ব্যক্তিকে যাকাত দেয়া যাবে, যদি সে গরীব হয়।
৫. অভাবগ্রস্থ আলেমদেরকে যাকাতের অর্থ প্রদান করা যাবে। এ ব্যাপারে বলা হয়েছে-
التصدق على العالم الفقير أفضل من التصدق على الجاهل.
মূর্খ ব্যক্তিকে যাকাত দেয়ার চেয়ে দরিদ্র আলেম ব্যক্তিকে যাকাত দেয়া উত্তম।
৬. এমন এতিমখানায় বা মাদরাসায় অর্থ প্রদান, যেখানে যাকাতের অর্থ এতিমদের জন্য ব্যয় করা হয় এবং গরীব ছাত্রদের জন্য ব্যয় করা হয়।

শর্ত : সবগুলোর ক্ষেত্রে শর্ত হলো- যাকাতগ্রহিতার মালিকানা সাব্যস্থ হওয়া। ইমাম আযম আবু হানীফা রহ. বলেন, ‘যাকাত যাকে দেয়া হবে, তার মালিক হওয়ার যোগ্যতা থাকতে হবে।’
মালিকুল উলামা তার ‘বিদায়াহ’ গ্রন্থে যাকাত আদায় হওয়ার মালিকানা সাব্যস্থ হওয়ার শর্তের পক্ষে দলীল দিয়েছেন যে, পবিত্র কুরআনে সাধারণত যাকাত ও ওয়াজিব সদকার ক্ষেত্রে ايتاء শব্দপ্রয়োগ করা হয়েছে। যেমন : اقيموا الصلاة واتوا الزكاة
আর ايتاء শব্দটি অভিধানে দান করা অর্থে ব্যবহৃত হয়। আল্লামা রাগেব ইস্পাহানী রহ. বলেন-
والإيتاء الإعطاء.
অর্থাৎ দান করা অর্থ কাউকে কিছু প্রদান করা।
আর একথাই বলাবাহুল্য যে, বাউকে কোন কিছু দান করার মর্ম এটাই যে তাকে বস্তুর মালিক বানিয়ে দেয়া হবে।
যে সকল কাজে মালিক বানিয়ে দেয়া যায় না, সে সব ক্ষেত্রে যাকাত দেয়া যাবে না।
ফাতাওয়ার কিতাবে উল্লেখ আছে-
ক্স যাকাত ততক্ষণ পর্যন্ত আদায় হবে না যতক্ষণ পর্যন্ত কোন উপযুক্ত ব্যক্তিকে মালিক বানিয়ে দেয়া না হবে। তাই যাকাতের টাকা দিয়ে মসজিদ নির্মাণ করা, লা-ওয়ারিস মুর্দার কাফন-দাফনের ব্যবস্থা করা, মৃত ব্যক্তির পক্ষ থেকে ঋণ আদায় করে দেয়া বৈধ নয়। কেননা এখানে কাউকে মালিক বানানো হয় না।
দলীল :
وَلَا يَجُوزُ أَنْ يَبْنِيَ بِالزَّكَاةِ الْمَسْجِدَ وَكَذَا الْقَنَاطِرُ وَالسِّقَايَاتُ وَإِصْلَاحُ الطَّرَقَاتِ وَكَرْيُ الْأَنْهَارِ وَالْحَجُّ وَالْجِهَادُ وَكُلُّ ما لَا تَمْلِيكَ فيه. الفتاوى الهندية – (১ / ১৮৮(
باب المصرف : ويشترط ان يكون الصرف تمليكا لا اباحة كما مر، فلا يكفى فيها الاطعام الا بطريق التمليك ولا يصرف الى بناء نحو مسجد كبناء القناطر والسقايات واصلاح الطرقات وكرى الانها………………..وكل ما لا تمليك فيه. (البحر الرائق، ২/৪২৩)

অতএব উপরের আলোচনায় এ কথা স্পষ্টভাবে বুঝা যায় যে, যাকাতের অর্থে গ্রহিতা মালিক হওয়ার যোগ্যতা থাকতে হবে। তবেই তার যাকাত আদায় হবে, নতুবা হবে না। পরিশেষে এ কথা উল্লেখ্য যে, ইমাম যামাখশারী তাঁর তাফসীরে লিখেছেন- في سبيل الله খাতে যাকাত প্রদান করার দুটি ফায়েদা রয়েছে। তা হলো- এক. ধর্মীয় সেবায় সহায়তা করা, দুই. গরীব-নিঃস্বের সাহায্য করা। (তাফসীরে কাশশাফ)


তথ্যসুত্র:

১. ফতোয়ায়ে শামী, ৩/২৮৯
২. ফতোয়ায়ে আলমগীরি, ১/১৮৭
৩. মুফরাদাত ফি গরীবিল কুরআন, ১/৯
৪. আদদুররুল মুখতার, ৩/২৯১

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close